Humans of Thakurgaon > Stories > Abdul Aziz


"ছোট বেলায় চৌরঙ্গি হোটেলে কাজ করতাম। পড়ালেখা খুব বেশি করিনি বলে বন্ধুরা লজ্জা দিত। সেসময় সন্ধ্যার পরে কোকিল স্কুলে ভগো’দা, সাজু ভাই, বেলাল ভাই, কড়ি’দা প্রমুখরা নাইট স্কুল চালাতেন। লজ্জা ঘোচাতে কোকিলের নাইট স্কুলে ভর্তি হলাম। মেট্রিক পরীক্ষা দেই রিভারভিউ স্কুল থেকে। পরীক্ষা দিয়েই আর্ট কলেজ দেখার জন্য গেলাম ঢাকায়। মর্মান্তিক বিষয় হল মেট্রিকে অকৃতকার্য হলাম। হল না আর আর্ট কলেজে ভর্তি হওয়া! মৌচাকের দিকে একটা ফুচকার দোকানে কাজ নিলাম। ছোট বেলা থেকেই যেহেতু ছবি আঁকার প্রতি ঝোক ছিল, ঢাকায় কষ্ট করে থাকার সময়গুলোতেও আঁকাআঁকি করতাম।

একসময় রাজশাহী আর্ট কলেজের ডিজাইন মাস্টার শ্রদ্ধেয় শেখ নজরুল ইসলামের সান্নিধ্য পেয়েছিলাম কিছুদিন। ঢাকা থেকে ফিরে প্রথমে বলাকা সিনেমা হলের সামনে ফুচকার দোকান দেই। পরে জিলা স্কুল বড়মাঠে চলে আসি ১৯৮৩-৮৪ সালের দিকে। তখন থেকেই এখানে আছি। দিনের বেলা দোকান করি। অবসর দিনগুলোতে ছবি আঁকার চেষ্টা করি।

একবার শিশির ভট্টাচার্য বললেন, আজিজ ভাই, তুমি তো আর্ট কলেজে পড়নি। ছবির বিশ্লেষণগুলো কর কীভাবে? আমি একটু হেসে শিশির দা’কে একটি বিশেষ ছবির খসড়া এঁকে দিয়েছিলাম। সে এক কাহিনী। সেটা আরেকদিন বলা যাবে।

নিয়মিত আঁকা হয় না। তবুও ছোট-বড় মিলে পাঁচশ’ ছবি আঁকা আছে আমার কাছে। চিত্র প্রদর্শনী করবার জন্য এঁকে বাঁধাই করা আছে প্রায় ৩৫টির মত ছবি। গ্রামীণ যেসব জিনিস হারিয়ে যাচ্ছে, সেসব নিয়ে আঁকাআঁকির চেষ্টা করি। মাঝে মাঝে স্কুলের বাচ্চারা নানান ছবির বিষয় নিয়ে গল্প করতে আসে। আমি আনন্দ নিয়ে তাদের সাথে সময় কাটাই। আমার ভালো লাগে, আমার এই জ্ঞানটুকুকে তারা কদর করে।

একটি ফোর-বি অথবা সিক্স-বি পেন্সিল দিয়ে আমাকে যা আঁকতে দিবেন এমুহূর্তে আমি তাই এঁকে দিতে পারব। কিছুদিন আগে একটা ছবি এঁকেছি। একজন ক্ষুধার্ত ভিখারির সামনে একটি শীর্ণ বুভুক্ষু কুকুর এসে দাড়িয়েছে। কি করুণ দৃশ্য! ছবিটির নাম দিলাম ‘ক্ষুধার্তের মুখোমুখি’। এরকম আর ১৫ টি ছবি আঁকা হলেই বড়মাঠে একটি চিত্র প্রদর্শনী করব বলে বাসনা আছে। স্বপ্ন দেখি ঢাকায় বেঙ্গল গ্যালারিতে একটি চিত্র প্রদর্শনী করার।

সত্যি বলতে কি জীবনটা তো অনেক বড় না। স্বল্প দৈর্ঘ্যের জীবনের অনন্যসাধারণ অদ্বিতীয় মুহূর্তগুলো পেন্সিল স্কেচে বন্দী করতে পারাটা আমার কাছে এক বিশেষ পরমানন্দ।"


"I used to work at a small hotel name Chowringhee Hotel. For shortcomings at study sometimes my friends used to tease me. At that time, Bhago da, Saju's bhai, Bilal bhai, Kuri da and others had been running a night school at Kokil School. Out of obstinacy, I started to study at Kokil Night School to avoid my friends poking. I appeared metric examination from Riverview School. After the examination I went to visit the Art College in Dhaka. It will always be a tragedy for me for not being opportunated to study at Art College! I started working on a Fuchka shop at Mouchak. Since I was obsessed with drawing, I practiced drawing during those days in Dhaka.

Once I got the opportunity to spend some time with the design master of Rajshahi Art College, respected Sheikh Nazrul Islam. Returning from Dhaka I started a Fuchka shop in front of Thakurgaon Balaka Cinema hall. In 1983-84, I moved in front of Zila School Baramath. Since then, I have been here. During day time, I used to work at the Fuchka Shop. When I get leisure, I try to draw.

Once Shishir Bhattacharjee asked me, Aziz bhai, despite not being an Art College graduate how do you scrutiny the drawings? With a smiling I handed over a draft of drawing of a particular photo to him. That is another story.

I do not paint regularly. I have almost five hundred paintings. For exhibition I have 35 paintings. The rural things which are being lost, I try to draw them. Sometimes students come to me to discuss about drawing. I get pleasure to spend time with them. I appreciate that they value my little knowledge.

A mere 6-B or a 4-B pencil is quite enough to make a drawing for me whatever you ask for. A few days back I drew a sketch. It resembles a pathetic scene of ' A hungry beggar in front of a hungry thin dog'.I named the drawing 'Khudharther Mukhomukhi'. I intend to illustrate more 15 paintings with a view to making an exhibition at 'Baramath'. I dream for an exhibition at the Bengal Gallery too.

In fact, life is not too long. Sketching the singular moments of this short life is a unique joy for me."


834 September 20, 2016

  • comment Load Comments Section

    question_answer Comments

    No new comments.

Prev Next
Go back to Stories