Humans of Thakurgaon > Stories > Champion at National Basketball Tournament 2017


"সালান্দর উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হবার পর দেখতে পেলাম রানা স্যারের প্রভাবে খেলাধুলার একটি চমৎকার আবহ তৈরি হয়েছে। সেটা দেখে আমরাও প্রতিযোগিতামূলক খেলায় অংশগ্রহণ করবার ইচ্ছা পোষণ করি। আমাদের উৎসাহ বুঝতে পেরে রানা স্যার আমাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করেন। প্রথম দিকে আমরা হ্যান্ডবল, ভলিবল, কাবাডি এসব খেলতে শুরু করি। ২০১৬ সালে ‘বাস্কেটবল ফেডারেশন’ ও ‘ঠাকুরগাঁও জেলা ক্রীড়া সংস্থা’র ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত বাস্কেটবল প্রশিক্ষণটি আমাদের সামনে নতুন সম্ভবনার দ্বার খুলে দেয়। সে বছরই বিদ্যালয়ের আভ্যন্তরিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বাস্কেটবল খেলাটি অন্তর্ভুক্ত হয়। ২০১৬ সালে ‘জাতীয় বাস্কেটবল টুর্নামেন্টে’ জেলা ও বিভাগীয় পর্যায় অতিক্রম করতে পারলেও আমরা জাতীয় পর্যায়ে কাঙ্ক্ষিত ফলাফল অর্জন করতে ব্যর্থ হই। পরের বছর ২০১৭ সালে যুব গেমস বাস্কেটবলে আমরা রানার্স-আপ হই। একই বছরে ‘জাতীয় বাস্কেটবল টুর্নামেন্টে’ আমরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করি।

আঞ্চলিক পর্যায় পেরিয়ে আমরা যখন বিভাগীয় পর্যায়ে যাচ্ছিলাম সেসময় মূলত পারিবার থেকে বাধার সম্মুখীন হই। তাছাড়া এর আগেও আমরা পরিবার থেকে পরিপূর্ণ সমর্থন পাইনি। পাড়ার লোকজন নানান রকম কথাবার্তা বলতো। জার্সি গায়ে আমরা বের হলেই ঠাট্টার সম্মুখীন হতাম। তবে জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফিরে আসবার পর থেকে পরিস্থিতি অনেকটাই বদলে গেছে। এখন খেলাধুলা নিয়ে মেয়েদের কেউ বাধা দেয় না; বরং উৎসাহিত করে।

সামাজিক বাধা ছাড়াও বাস্কেটবল খেলার শুরুর দিকে আমাদের পর্যাপ্ত ক্রীড়াসামগ্রী ছিল না। এমনকি এখনও আমাদের বিদ্যালয়ে একটি বাস্কেটবল গ্রাউন্ড নেই। গ্রাউন্ডে অনুশীলন করবার জন্য আমাদের সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ নয়তো বিডিআর ক্যাম্প মাঠে যেতে হয়। যার কারণে আমরা নিয়মিতভাবে অনুশীলন করতে পারছি না। অতিসত্বর এ বিদ্যালয়ে একটি বাস্কেটবল গ্রাউন্ড নির্মিত হবে, এই আমাদের প্রত্যাশা।"


"After being admitted to Salandar High School, we got to see an excellent environment of sports due to Rana Sir's great effort. Seeing this, we also did wish to participate in competitive sports. Rana Sir observed our keenness and started to train us. Initially we started playing handball, volleyball and kabaddi. A basketball training organized by the ‘Basketball Federation’ and ‘Thakurgaon District Sports Association’ in 2016 opened up new possibilities for us. In the same year, basketball game was included in our school's internal sports competition. Although we could exceed the district and divisional level in 2016, there was no such achievement for us at the final level in the ‘National Basketball Tournament’. Next year in 2017, we got the runners-up position in Youth Games Basketball. In the same year, we achieved the pride of being champion in the ‘National Basketball Tournament 2017’!

While we were through the regional stage and were to go for the divisionals, we had to face certain problems from our families. Moreover, we didn't get any support from our families even before. The whole neighborhood laughed at us when we were out wearing our kits. But now the situation has changed as we became the national champions. Girls are not being discouraged here to play anymore, rather people appreciate them.

Aside from the social obstacles, we didn't have enough gadgets when we started playing basketball. Even now there is no basketball court in our schoolyard. For playing and practicing, we have to go to Thakurgaon Government Boys' High School or the BDR Camp. Thus, we cannot practice properly and regularly. We really hope that a basketball court will be built in our school very soon."


206 May 05, 2018

  • comment Load Comments Section

    question_answer Comments

    No new comments.

Prev Next
Go back to Stories